পুরুষ থেকে নারীতে রূপান্তরিত হলেন দুই জমজ ভাই

অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে লিঙ্গান্তর ঘটিয়ে নারী থেকে পুরুষ বা পুরুষ থেকে নারী অনেকেই হলেও এই প্রথমবারের মত একই সঙ্গে লিঙ্গান্তর ঘটিয়ে নারীতে পরিণত হয়েছেন ১৯ বছর বয়সী দুই যমজ ভাই।সম্প্রতি দক্ষিণ আমেরিকার ব্রাজিলে ঘটেছে আলোচিত এই ঘটনা। দেশটির দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলীয় এক ছোট্ট শহরে বেড়ে ওঠা দুই যমজ ভাই মাইলা এবং সোফিয়া জন্মের পর ছেলে হিসেবে চিহ্নিত হলেও তাদের কেউ কখনো পুরুষ ভাবেইনি। তারা সমাজে নারী হিসেবেই চিহ্নিত হতেন।এদিকে বিশ্বের প্রথম এই জাতীয় অস্ত্রোপচারের সঙ্গে জড়িত ডা. জোসে কার্লোস মার্টিনস বলেছেন যে, এই যমজেরা জন্মের সময় ছেলে হিসেবে জন্মগ্রহণ করেছিলেন তবে এখন অস্ত্রোপচার করে মহিলা লিঙ্গ নিশ্চিতকরণের ঘটনা এটাই বিশ্বে প্রথম।ডা. জোসে আরো জানান, তাদের অস্ত্রোপচারে সময় লেগেছিল ৫ ঘণ্টা।এদিকে অস্ত্রোপচারের ১ সপ্তাহ পরে, মাইলা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তাদের জীবন সংগ্রামের পুরো গল্পটি জানিয়েছেন। তিনি বলেছিলেন, আমি সর্বদা আমার শরীরকে ভালবাসি।মাইলা আর্জেন্টিনায় চিকিৎসা শাস্ত্রে পড়াশোনা করছেন।তিনি আরও বলেছিলেন, ১৯ বছর ধরে আমরা যমজ বোন হিসাবে চিহ্নিত, আমাদের কখনই ছেলে হিসাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়নি। শুধু তাই নয় তারা বহুবার যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন।

এছাড়া অনেকবার তাদের দু’জনকে বুলিংয়ের শিকার হতে হয়েছিল। সে সময় দুই বোন নিজেদের একে অপরকে সমর্থন দিয়ে গেছেন।তিনি বলেন, আমরা শৈশব নির্যাতনের শিকার হয়েছি, তবে আমাদের পরিবারের সর্বদা সমর্থন রয়েছে। মা বাবার আমাদের নিয়ে কোন সমস্যা হয়নি। বরং বাইরের মানুষদের নিয়েই তারা ভয় পেয়েছেন। শুধু তাই নয় তাদের দাদা এই অস্ত্রোপচারের সম্পূর্ণ অর্থ বহন করেছেন। আর তা করতে গিয়ে ২০ হাজার ডলারের সম্পত্তি বিক্রি করে দিয়েছেন।বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের এক সময়কার নিয়মিত ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও কেবিন ক্রু তামিমা সুলতানা তাম্মির বিয়ে নিয়ে সারা দেশে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। এরই মধ্যে তামিরার আগের স্বামী রাকিব হাসান নাসির দম্পতির বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছেন। এমন বেগতিক অবস্থার মধ্যে বুধবার বনানীতে গণমাধ্যমের সামনে উপস্থিত হয়েছে নাসির হোসেন ও তামিমা তাম্মি। তারা দাবি করেন শরিয়ত সম্মতভাবেই বিয়ে করেছেন।সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নাসির হোসেন বলেন, ওকে নিয়ে যেসব কথা বার্তা হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় যে সব ভিডিওর হেডলাইন করা হচ্ছে, আমার মনে হয় না ও (তামিমা) সেটা ভালোভাবে নিতে পারছে। আমি যতটুকু বুঝি আমি তামিমার কাছ থেকে এক সেকেন্ডের জন্যও আলাদা হইনি।কারণ আমার এখন ভয় লাগতেছে যে কোনো একটা রং ডিসিশন নিতে পারে। আমি শুধু এতটুকু বলব যে, এটা তামিমার সঙ্গে হচ্ছে এটা কালকে আপনার সঙ্গে হতে পারে। আপনাদের সবারই মা-বোন আছে। তামিমার আগের বিয়ে নিয়ে নাসির বলেন, ও (তামিমা) ছোট বেলায় বিয়ে করেছে ফাইন, বিয়ে করতেই পারে, লাভ করতেই পারে, এটা স্বাভাবিক। ওর কী হ্যাপি থাকার কোনো রাইটস নাই, ওর কি সুখে থাকার রাইটস নাই, অবশ্যই আছে। আমি ওকে ভালো করেই চিনি। ওর লাইফের সব কিছু জেনে শুনেই ওকে একসেপ্ট করছি। আগের স্বামীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, রাকিব সাহেব যেভাবে কথাবার্তা বলে, সে তো আগে তামিমার ছিল এখন সে আমার ওয়াইফ। ওকে বলা মানে আমাকে বলা। ‘আমাদের দুজনকে যতটা ইফেক্ট করছে তার চেয়ে বেশি আমাদের পরিবারকে ইফেক্ট করছে। এখানে আমাদের ফ্রেন্ড সার্কেল আছে, আমাদের আত্মীয়-স্বজন আছে, সবাইকে ইফেক্ট করতেছে। তাদের উদ্দেশ্যে এতটুকুই বলব তারা এমন কিছু না করে, এমন কিছু না বলুক বা আমি না হয় ন্যাশনাল টিমের প্লেয়ার ঠিকআছে। আমাকে মানুষ ভালোবাসে আমাকে মানুষ গালাগালিও করে, সেটা আমি মেনে নিতে পারি। কিন্তু তামিমা এই কালচারের না। তো ওর জন্য এটা অনেক ডিফিকাল্ট’।

About অনলাইন ডেস্ক

View all posts by অনলাইন ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *