ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করার পরেও ঘরের ফ্যান ঠিক না করতে পারায় ছেলের সার্টিফিকেট ছিঁড়ে ফেলল মা!

চা’রিদিকে ল’কডা’উন! বাড়ি থেকে বে’রোন নি’ষেধ! বাড়িতে বসে বসে সবার ই মে’জাজ এর ১২ বেজে আছে। অ’নেকেই খি’টখিটে হয়ে যা’চ্ছেন। আবার অ’নেকেই নি’জের নানান কা’জের মাধ্যমে নি’জেকে ব্যাস্ত রা’খছেন। কিন্তু এর মধ্যেই যদি আ’পনার বাড়িতে ফ্যা’ন খারাপ হয়ে যায়! আর ই’লেক্ট্রিশি’য়ান আসতে পারবেনা বলে আ’পনি জা’নতে পারেন!

আর বা’ড়িতেই যদি থাকে ই’লেক্ট্রি’ক ই’ঞ্জিনিয়া’র ছেলে তাহলে তো কোনও ব্যা’পার ই না! কিন্তু এমন মুহূর্তে যদি জানতে পারেন ই’লেকট্রিক ই’ঞ্জিনিয়ার ছেলেও সেই ফ্যান সা’রাতে পারছেনা তাহলে একে গরম আ’রেকদিকে ছেলের ওপর রাগ দু’টোই এ’কসাথে উ’থলে পড়ার কথা কিনা ?

ঠিক এমন টাই ঘটেছে এ’ইপরিবারে। হঠাৎই বা’ড়ির ফ্যা’ন খারাপ হয়ে যাওয়ায় গরমে না’জেহাল অ’বস্থায় মা’য়ের। তখন সে তার মে’কানিকা’ল ই’ঞ্জিনিয়ার কে ডাকে! ছেলে মা’য়ের কথা মতো অ’নেক্ষন ধরে দেখেও সেই ফ্যা’ন এর অসুবিধে খুঁ’জতে অ’ক্ষম হয়। তখনই ফোন করে আ’সেন ই’লেক্ট্রিশিয়ান!

সে কি’ছুক্ষনের মধ্যেই সেই ফ্যান কে ঠিক করে লা’গিয়ে দিয়ে চলে যায়! এর মাঝেই রাগে অ’গ্নিশর্মা হয়ে ওঠেন মা! রাগে সে ছে’লের ই’লেকট্রিক ই’ঞ্জিনিয়া’রিং এর সা’র্টিফি’কেট হাতে নিয়ে ছেলের সা’মনেই ছিড়ে ফেলে!

About অনলাইন ডেস্ক

View all posts by অনলাইন ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published.