আদার পুকুরে মিলল পাথরে’র মূর্তি!

আদার পুকুর। বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার ইন্দোইল চকসাবাজ গ্রামের শত বছরের পুরাতন একটি পুকুরের নাম। খাসজমিতে পুকুরটি ওই গ্রামের মসজিদ কমিটির লোকজন দেখভাল করেন। পুকুরটিতে একটি মূল্যবান পাথরের মূর্তি পাওয়া গেছে।

সোমবার (২৯ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টায় আদার পুকুরে গোসল করতে নেমে ওই গ্রামের দুলাল সাখিদারের ছেলে সিয়াম মাহফুজ (১২) মূর্তিটি পায়। পরে গ্রামের লোকজন বিষয়টি পুলিশকে জানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মূর্তিটি উদ্ধার করে থানায় নেয়।

এর আগে ২০১৪ সালের ১৩ মার্চ একই পুকুরে রবিউল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি পুকুরের পাড়ে মাটি কাটার সময় ৬ কেজি ওজনের কষ্টিপাথরের চতুর্ভুজ আকারের একটি বিষ্ণুমূর্তির সন্ধান পান। ওই মূর্তিটির মূল্য ছিল প্রায় ৬ কোটি টাকা।

গ্রামবাসী মূল্যবান ওই মূর্তিটিও থানা পুলিশের কাছে জমা দিয়ে দেন। মাত্র সাত বছরের ব্যবধানে একই পুকুর থেকে পরপর দুটি মূর্তি পাওয়ার ঘটনায় আদার পুকুরকে এখন গ্রামবাসী ‘মূর্তি-পাথরের’ পুকুর বলছেন।

চকসাবাজ গ্রামের যুবক মেহেদী হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘পরপর মূল্যবান কষ্টিপাথরের দুটি মূর্তি ও পাথর উদ্ধারের ঘটনা গ্রামবাসীর মাঝে কৌতূহল সৃষ্টি করছে। এখন অনেকেই মনে করছে এই পুকুরে আরও মূল্যবান কিছু থাকতে পারে। তবে মূল্যবান কিছু পাওয়া গেলে আমরা সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বা পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করে থাকি।’

আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে ওই গ্রাম থেকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পাথরের মূর্তির একটি টুকরা উদ্ধার করা হয়েছে। এর ওজন প্রায় ৩৫০ গ্রাম। দৈর্ঘ্য ৭ ইঞ্চি ও প্রস্থ ৪ ইঞ্চি। পাথরটি পরীক্ষা করলে এর মূল্য এবং ধরন জানা যাবে।

About অনলাইন ডেস্ক

View all posts by অনলাইন ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *