ব্যাপক হারে ‘বেড়ে’ গেল ‘সোনার দাম’

দুই সপ্তাহের ব্যবধানে দেশের বাজারে সোনার দাম আবারও বাড়তে যাচ্ছে। এই দফায় ভরিতে বাড়ছে ২ হাজার ৪১ টাকা। তাতে ভালো মানের, অর্থাৎ ২২ ক্যারেট সোনার দাম গিয়ে দাঁড়াচ্ছে ৭৩ হাজার ৪৮৩ টাকা। নতুন দর কাল রোববার থেকে কার্যকর হবে।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস) আজ শনিবার সন্ধ্যার পর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছে। সর্বশেষ ১০ মে দেশের বাজারে সোনার দাম ভরিতে বেড়েছিল ২ হাজার ৩৩৩ টাকা।






তার মানে দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সোনার দাম ভরিতে বাড়ছে ৪ হাজার ৩৭৪ টাকা। গত বছরের ৬ আগস্ট দেশে সোনার দাম সর্বোচ্চ ভরিতে ৭৭ হাজার ২১৬ টাকা উঠেছিল। সেটিই ছিল দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ সোনার দাম।

নতুন দর কাল রোববার থেকে কার্যকর হওয়ায় ২২ ক্যারেটের ১ ভরি সোনার অলংকার কিনতে লাগবে ৭৩ হাজার ৪৮৩ টাকা। এ ছাড়া ২১ ক্যারেট ৭০ হাজার ৩৩৪ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৬১ হাজার ৫৮৬ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনার অলংকারের ভরি বিক্রি হবে ৫১ হাজার ২৬৩ টাকায়। মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ার আগে গতকাল পর্যন্ত প্রতি ভরি ২২ ক্যারেট সোনা ৭১ হাজার ৪৪২ টাকা, ২১ ক্যারেট ৬৮ হাজার ২৯৩ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৫৯ হাজার ৫৪৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির সোনার অলংকার বিক্রি হয়েছে ৪৯ হাজার ২২২ টাকায়। কাল থেকে ২২, ২১, ১৮ ক্যারেট ও সনাতন পদ্ধতির সোনার ভরিতে ২ হাজার ৪১ টাকা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সোনার দাম বাড়ালেও রুপার দাম অপরিবর্তিত রেখেছে জুয়েলার্স সমিতি। ২২ ক্যারেট রুপার ভরি আগের মতোই ১ হাজার ৫১৬ টাকায় বিক্রি হবে। ২১ ও ১৮ ক্যারেট রুপার ভরি যথাক্রমে ১ হাজার ৪৩৫ ও ১ হাজার ২২৫ টাকা। সনাতন পদ্ধতির রুপার ভরি ৯৩৩ টাকায় বিক্রি হবে।






এদিকে সোনার অলংকারের ক্ষেত্রে প্রতি গ্রামে (১ ভরি= ১১.৬৬৪ গ্রাম) সর্বনিম্ন ২৫০ টাকা মজুরি নির্ধারণ করে দিয়েছে জুয়েলার্স সমিতি। তার মানে ভরিতে মজুরি ২ হাজার ৯১৬ টাকা। রুপার অলংকারের প্রতি গ্রামে মজুরি ২৬ টাকা। তার বাইরে ভ্যাট যুক্ত হবে।

দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সোনার দাম ভরিতে বাড়ছে ৪ হাজার ৩৭৪ টাকা। ২২ ক্যারেটের এক ভরি সোনার অলংকার কিনতে লাগবে ৭৩ হাজার ৪৮৩ টাকা। তার সঙ্গে যুক্ত হবে মজুরি ও ভ্যাট।

জানতে চাইলে জুয়েলার্স সমিতির সহসভাপতি দেওয়ান আমিনুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে সোনার দাম ব্যাপকভাবে বেড়ে গেছে। অন্যদিকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ থাকায় ব্যাগজ রুলসের আওতায় সোনা আসছে না। আবার পুরোনো সোনার অলংকারও পরিশোধিত হয়ে জেলা পর্যায় থেকে রাজধানীতে আসছে না। সে কারণে বিশুদ্ধ সোনার ঘাটতি দেখা দিয়েছে। সব মিলিয়ে সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

About অনলাইন ডেস্ক

View all posts by অনলাইন ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *