বাজেটে বেসরকারি ‘শিক্ষক-কর্মচারীদের’ জন্য থাকছে ‘সুখবর’

দেশব্যাপী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মহামারিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত খাতগুলোর মধ্যে আছে শিক্ষা খাতের নাম। কিন্তু পাঠদানে ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো সরকারি গবেষণা পরিচালিত হয়নি।

লক্ষ্যপূরণে ব্যর্থতার পুনরুদ্ধারেও গৃহীত হয়নি কোনো ব্যবস্থা। বিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া ঠেকাতে নেই কোনো পদক্ষেপ। এমনকি অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের মুখে বন্ধ হয়ে পড়া বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকেও কোনো আর্থিক সহায়তা দেয়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ ধরনের বহু প্রতিষ্ঠানের একাডেমিক কার্যক্রম পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। একইসঙ্গে বহু মানুষ হারিয়েছে কর্মসংস্থান।






কভিড-১৯ মহামারির কারণে এক বছরের দীর্ঘ সময় ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকায় ২০২০-২১ অর্থবছরে বাজেটে শিক্ষা খাতে বরাদ্দকৃত অর্থের পুরোটা ব্যয় করতে পারেনি শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। চলতি অর্থবছরে সরকার দেশের শিক্ষা খাতে ৬৬ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিলেও মন্ত্রণালয়গুলোর ব্যয়ের পরিমাণ ৫৬ হাজার কোটি টাকা।

এবারের বাজেটে নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য সুখবর থাকছে। প্রস্তাবিত বাজেটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের জন্য ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দের সম্মতি দিয়েছে অর্থ বিভাগ। এর মধ্যে ২০০ কোটি টাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের জন্য এবং বাকি ১০০ কোটি টাকা কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের জন্য বরাদ্দের প্রস্তাব রাখছে অর্থ মন্ত্রণালয়।






মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ চাওয়ার কথা ছিল। তবে তা না দিয়ে নির্ধারিত বরাদ্দ প্রস্তাব সিলিং করে দিয়েছে অর্থ বিভাগ। তবে কত সিলিং করে দিয়েছে তা জানা যায়নি।

আর কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ চাইলেও ৫০ কোটি টাকায় সিলিং করে দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবিত মোট বাজেট বরাদ্দ প্রায় ৪৫ হাজার ৫৭২ কোটি ৪০ লাখ। এর মধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের বরাদ্দ ৩৬ হাজার ৪২৭ কোটি। কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের বরাদ্দ ৯ হাজার ১৫৪ কোটি ৪০ লাখ। অর্থ বিভাগের সিলিং করা মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের বরাদ্দে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির সুযোগ রাখা হয়েছে।

About অনলাইন ডেস্ক

View all posts by অনলাইন ডেস্ক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *